বাসদের (মার্কসবাদী) প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশের বামপন্থী রাজনীতির অন্যতম নেতা, আমৃত্যু বিপ্লবী প্রয়াত কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী স্মরণে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (৩ অক্টোবর) বিকাল ৪ টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবস্থ এসএম মিলনায়তনে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তরা বলেন, কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী এদেশের বাম আন্দোলনে এক স্বতন্ত্র ধারার জন্ম দিয়েছিলেন। কিশোর বয়সেই তিনি বিপ্লবী রাজনীতিকে জীবনের লক্ষ হিসেবে নির্ধারণ করেছিলেন এবং আমৃত্যু বিরামহীনভাবে এদেশের মাটিতে বিপ্লবী রাজনীতি গড়ে তোলাকেই সাধনা হিসেবে নিয়েছিলেন। তাঁর বিশ্বাস ও কর্ম অভিন্ন ছিল এবং আমৃত্যু তাতে অটল ছিলেন। উন্নত সংস্কৃতি-মূল্যবোধ ও বলিষ্ট চরিত্র দিয়ে তিনি মানুষকে আকৃষ্ট ও তাদের মনে গভীর ছাপ ফেলতে পারতেন। বাংলাদেশের জনগণের শোষণমুক্তির আন্দোলনে কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী এক অনন্যসাধারণ চরিত্র ও অনুপ্রেরণা হিসেবে সমুজ্জ্বল থাকবেন।

বাসদ(মার্কসবাদী) জেলা আহবায়ক কমরেড মানস নন্দীর সভাপতিত্বে ও শফি উদ্দিন কবির আবিদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় নির্বাহী ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী কমরেড ফখরুদ্দিন কবির আতিক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমান, গণমুক্তি ইউনিয়ন জেলা সভাপতি রাজা মিঞা, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল (পূর্ব-৩) সভাপতি অ্যাডভোকেট ভূলন ভৌমিক, গণসংহতি আন্দোলন বাংলাদেশ জেলা সমন্বয়কারী হাসান মারুফ রুমি,বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলন জেলা পাঠচক্রের সমন্বয়কারী অপু দাশ গুপ্ত,বামজোটের জেলা সমন্বয়ক ও বাসদ জেলা নেতা মহীন উদ্দিন।

স্মরণসভায় আলোচকরা কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরীর সঠিক বিপ্লবী দল গড়ে তোলার আমৃত্যু সংগ্রামকে মানুষের কাছে তুলে ধরা ও তাঁর অপূরিত স্বপ্নপূরণের লড়াই-সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

স্মরণসভায় আরও বক্তব্য রাখেন, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট জেলা সাধারণ সম্পাদক মোঃ মামুন,মাওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিদ্দিকুল ইসলাম,সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের প্রাক্তন নেতা নুরুল আরশাদ চৌধুরী,ওসমান গণি মজুমদার,আলতাফ কিবরিয়া সোহেল,সাবেক কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস পপি, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র কেন্দ্রীয় ইনচার্জ ইন্দ্রানী সোমা, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি আসমা আক্তার প্রমুখ।

এতে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড অশোক সাহা,প্রাক্তন জাসদ-এর সভাপতি সোলায়মান খান, মাওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনের আবদুল গাফফার খান, রেল শ্রমিক নেতা রিজওয়ানুর রহমান, গণঅধিকার চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি মশিউর রহমান খান, বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি রক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সিঞ্চন ভৌমিক, সভার শুরুতে শোকসঙ্গীত পরিবেশন করেন চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সংগঠক সানজিদা তারিন।

এরপর কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরীর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক দিয়ে শ্রদ্ধা জানান চট্টগ্রামের বিভিন্ন বামপন্থী দল ও শ্রেণী পেশার নেতৃবৃন্দ।

 

আরও খবর