চট্টগ্রামে করোনার বড় সুখবর মিলেছে উপজেলায়। গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের চট্টগ্রামের ১৪ উপজেলায় মিলেনি কোন করোনা রোগী। তবে নগরী এখনো করোনামুক্ত হতে পারেনি। গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে এক হাজার ৫৮৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০ জনের দেহে করোনার জীবাণু শনাক্ত হয়। এতে পরীক্ষার তুলনায় সংক্রমণের হার হয় প্রায় শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ।শনাক্তদের সবাই নগরের বাসিন্দা। এদিনও করোনায় চট্টগ্রামে প্রাণহানি ঘটেনি কারও।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত এক লাখ দুই হাজার ১১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তদের মধ্যে নগরের বাসিন্দা ৭৩ হাজার ৯০০ জন, বাকি ২৮ হাজার ২১০ জন বিভিন্ন উপজেলার। আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত এক হাজার ৩১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৭২০ জন চট্টগ্রাম নগরের, আর বিভিন্ন উপজেলায় মৃত্যু হয়েছে ৫৯৩ জনের।

রোববার (১৭ অক্টোবর) চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। জেলায় শনিবার (১৬ অক্টোবর) ১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়। ওইদিনও ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি।

ল্যাবভিত্তিক ফলাফল পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি ল্যাবে ৩৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে পাঁচজনকে করোনার জীবাণুবাহক হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। বেসরকারি করোনা পরীক্ষাগার ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ২৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে একজনের নমুনায় করোনা পজিটিভ আসে। শেভরণ হাসপাতাল ল্যাবে ৬৯৯ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। তাতে দুজনের করোনা শনাক্ত হয়। এবং ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে মাত্র ১৪ জনের নমুনায় দুজনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

এদিন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ২৪টি নমুনা, কক্সবাজার মেডিকেলে ২০টি নমুনা, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ১৭২টি নমুনা, জেনারেল হাসপাতালের আরটিআরএল ল্যাবে ৩টি নমুনা, চট্টগ্রাম মেডিকেল সেন্টারে ৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হলেও সবগুলোতেই করোনা নেগেটিভ আসে।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিমেল সাইয়েন্স বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব, ল্যাব এইড ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতাল ল্যাবে কোন নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি।

আরও খবর