মহামারি করোনা পুরো চট্টগ্রামজুড়ে তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে। নগরের পাশাপাশি চট্টগ্রামের উপজেলাগুলোতেও প্রতিদিন মেলছে বিস্তর করোনারোগী। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে শনাক্ত ৮৭৯ জনের মধ্যে ২৫৩ জন উপজেলার। এর মধ্যে হাটহাজারী-রাউজান মিলেই ১৪০ জন। একই সময়ে চট্টগ্রাম নগর-উপজেলায় সমান ৫ জন করে মৃত্যু হয় করোনায়।

এই নিয়ে চট্টগ্রামে শনাক্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ৯১ হাজার ৯০৭ জনে। এদের মধ্যে নগরের ৬৭ হাজার ৮৯৪ জন এবং ২৪ হাজার ১৩ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। অন্যদিকে, করোনায় মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮২ জনে। এদের মধ্যে ৬৩১ জন নগরের এবং ৪৫১ জন উপজেলার বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়। তথ্য অনুযায়ী, এইদিন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজসহ চট্টগ্রামের সরকারি-বেসরকারি ১১টি ল্যাব এবং বিভিন্ন এন্টিজেন টেস্টে ২ হাজার ৯৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাতে ৮৭৯ জনের ফলাফল পজিটিভ আসে। আক্রান্তদের মধ্যে নগরীর বিভিন্ন এলাকার ৬২৬ জন এবং উপজেলার ২৫৩ জন রয়েছেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৩৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২৮ জনকে করোনার জীবাণুবাহক হিসেবে শনাক্ত করা হয়। এদের মধ্যে ৬৪ জন নগরের এবং ৬৪ জন বিভিন্ন উপজেলার।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৫৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ১৪১ জন। এদের ১১৯ জন নগরের, ২২ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৩৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়। যাদের মধ্যে ১৩০ জনই নগরের, বাকি ৭ জন বিভিন্ন উপজেলার।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ২৬৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়। যাদের মধ্যে ৩৮ জন নগরের এবং ৭১ জন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে ৫৩০ জনের নমুনা এন্টিজেন টেস্ট করা হয়। তাতে ১১৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে ৪৯ জন নগরের এবং ৬৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ২১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলেও সেগুলোতে করোনা নেগেটিভ আসে।

এছাড়া বেসরকারি ল্যাবগুলোর মধ্যে ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাব ১৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৬ জনের করোনা পজিটিভ আসে। এদের ৩২ জন নগরের, ৪ জন উপজেলার।

শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৩৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে ৭৮ জন নগরের এবং ৫ জন উপজেলার বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৬২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জনের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এদের ১৮ জনই নগরের, বাকি ৪ জন উপজেলার।

জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) গত ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নগরের ১৬ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল সেন্টার ল্যাবে ৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নগরের ২৩ জন ও উপজেলার ১ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়।

ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাব ১৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নগরের ৫৯ জন ও উপজেলার ১০ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে।

উপজেলায় শনাক্ত ২৫৩ জনের মধ্যে হাটহাজারী উপজেলাতেই শনাক্ত হয় ৮০ জন রোগী। এছাড়া রাউজানে ৬৫ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ২৫ জন, পটিয়ায় ২১ জন, সীতাকুণ্ডে ১৯ জন, ফটিকছড়িতে ১০ জন, মিরসরাইয়ে ৯ জন, সাতকানিয়ায় ৭ জন, আনোয়ারায় ৬ জন, বাঁশখালী ও বোয়ালখালীতে ৪ জন করে, চন্দনাইশ, লোহাগাড়া ও সন্দ্বীপে ১ জন করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়।

আরও খবর