চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ দশমিক ৭৩ শতাংশ হারে নতুনভাবে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৪৮ জন। তাদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ২৮ জন বাসিন্দা রয়েছেন, বাকিরা বিভিন্ন উপজেলার। একইসময়ে চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন ৭৬ জন। সেদিনও মৃত্যু হয়েছিল এক জনের।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ১ লাখ ১ হাজার ৪৩৬ জন। শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের বাসিন্দা ৭৩ হাজার ৪৮৫ জন। বাকি ২৭ হাজার ৯৫১ জন বিভিন্ন উপজেলার। আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত মোট ১ হাজার ২৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৭০৮ জন নগরের, আর বিভিন্ন উপজেলায় মৃত্যু হয়েছে ৫৭৬ জনের।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের ১১টি ল্যাবে ১ হাজার ৭৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৮ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

ল্যাবভিত্তিক ফল পর্যালোচনায় দেখা যায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জনকে করোনার জীবাণুবাহক হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। বিআইটিআইডিতে ৭২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ১৯২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে এন্টিজেন টেস্টে ১৩৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ১২৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে কারো করোনা শনাক্ত হয়নি। শেভরনে ৩৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে ৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আরটিএলে ৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ১৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ইপিক হেলথ কেয়ারে ৩১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনে শনাক্ত হয়েছে এবং ল্যাব এইডে ৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব (সিভাসু) ও কক্সবাজারে মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনার কোন পরীক্ষা হয়নি।

চট্টগ্রামের উপজেলাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রোগীর হদিস পাওয়া যায় সীতাকুণ্ডে ৭ জন। এছাড়া, রাঙ্গুনিয়ায় ৬ জন, পটিয়াতে ২ জন, সাতকানিয়া, বাঁশখালী, রাউজান, ফটিকছড়ি ও মিরসরাইয়ে ১ জন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদিন লোহাগাড়া, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, বোয়ালখালী, হাটহাজারী ও সন্দ্বীপ উপজেলায় নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি।

আরও খবর