বনানীর রেইনট্রিতে ধর্ষণকাণ্ড, গুলশানের মুনিয়া আত্মহত্যাকাণ্ডসহ বিভিন্ন ঘটনায় আলোচনায় আসা চট্টগ্রামের মেয়ে ফারিয়া মাহাবুব পিয়াসার ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পৃথক তিনটি মামলায় তার ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়েছে।

তিন দিনের রিমান্ড শেষে পিয়াসাকে শুক্রবার (৬ আগস্ট) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালতে হাজির করা হয়।

আদালতে হাজির করার পর সিআইডির পক্ষ থেকে খিলক্ষেত থানার মাদকের মামলায় ৭ দিন, ভাটারা থানায় মাদক মামলায় ১০ দিন ও গুলশান থানায় মাদক মামলায় ১০ দিনসহ ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন কর হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল করে জামিন আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত খিলক্ষেত ও ভাটারা থানার মামলায় ৩ দিন করে ৬ দিন এবং গুলশান থানার মামলায় ২ দিনসহ মোট আট দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আদায়ের অভিযোগে গত ১ আগস্ট রাতে বারিধারার বাসা থেকে থেকে পিয়াসাকে আটক করা হয়। এসময় তার রান্নাঘরের ক্যাবিনেট থেকে ৯ বোতল বিদেশি মদ, ফ্রিজ থেকে মাদক সিসা তৈরির কাঁচামাল এবং টেবিল থেকে চার প্যাকেট ইয়াবা জব্দ করে ডিবি। পর দিন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলামের আদালত পিয়াসার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

চট্টগ্রাম নগরীর আসকরদীঘির পশ্চিম পাড়ে বেড়ে ওঠা ফারিয়া মাহাবুব পিয়াসার। টিভি উপস্থাপনা ও মডেলিংয়ে জড়িত থাকা পিয়াসা এনটিভির রিয়েলিটি শো ‘সুপার হিরো সুপার হিরোইন’র অন্যতম প্রতিযোগী ছিলেন। বিয়ে করেছিলেন দীর্ঘদিনের প্রেমিক ও আপন জুয়েলার্সের মালিকে ছেলে ব্যবসায়ী শাফাত আহমেদকে। ২০১৭ সালে মে মাসে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ধর্ষণের শিকারের ঘটনায় আলোচনায় আসে তার নাম।

সম্প্রতি গুলশানের অভিজাত ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়া নামের এক তরুণীর লাশ উদ্ধারের পর বসুন্ধরা গ্রুপের এমডির বিরুদ্ধে যে মামলা দায়ের হয়েছিল তাতেও নাম আছে পিয়াসার।

দৃশ্যমান কোন আয় না থাকলেও রাজধানীর বারিধারার ৯ নং রোডের যে বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় সেই ফ্ল্যাটের মাসিক ভাড়া প্রায় আড়াই লাখ টাকা বলে জানায় পুলিশ। তারা বাসায় নিয়মিত মদের আসর বসতো। সেখানে অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তির যাতায়াত ছিল। নেশার ঘোরে বেসামাল ভিআইপিদের বিশেষ মুহূর্তের দৃশ্য ধারণের জন্য পিয়াসা পুরো ফ্ল্যাটে গোপন ক্যামরা স্থাপন করেছেন বলেও জানান গোয়েন্দা পুলিশ।

আর সেই গোপন ক্যামরায় ভিআইপি ও প্রভাবশালী ব্যবসায়ীদের ভিডিও ধারণ করে তাদের ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায়ের অভিযোগে আটক হন পিয়াসা। পিয়াসার আগে আটক হন হেলনা জাহাঙ্গীর নামে আরেক ব্যবসায়ী। এরপর মডেল মৌ, নায়িকা পরীমণি। মৌ এবং পরীমণিও রিমান্ডে আছেন।

চট্টগ্রাম বার্তা/পিএ

আরও খবর