চট্টগ্রামে একদিনের ব্যবধানে করোনা শনাক্ত কমে এসেছে ৫০৭ জনে। এদের মধ্যে নগরের ৩৭৪ ও উপজেলার ১৩৩ জন। তবে শনাক্ত কমলেও কমছে না প্রাণহানি। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা কেড়ে নিয়েছে আরও ১৩ জনের প্রাণ। যাদের ৫ জন নগরের এবং ৮ জন বিভিন্ন উপজেলার।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৭২ জনে। এর মধ্যে মহানগরের ৬২৬ জন এবং উপজেলার ৪৪৬ জন। অন্যদিকে মোট শনাক্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ৯১ হাজার ২৮ জনে। যাদের মধ্যে ৬৭ হাজার ২৬৮ জন মহানগরের এবং ২৩ হাজার ৭৬০ জন বিভিন্ন উপজেলার।

সোমবার (৯ আগস্ট) চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি জানান, এদিন চট্টগ্রামের বিভিন্ন ল্যাবে ২ হাজার ৩৭১ জনের নমুনা পরীক্ষা করানো হয়।

ল্যাবভিত্তিক ফলাফলে দেখা যায়, ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডিতে ৭৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৫৪ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে (চমেক) ৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১২ জনের দেহে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে।

এন্টিজেন টেস্টে ৫৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের ল্যাবে ২২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ৩৬৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে ৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ৫৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং ইপিক হেলথ কেয়ারে ১৭৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সিভিল সার্জন আরো জানান, উপজেলা পর্যায়ে লোহাগাড়ায় শূণ্য, সাতকানিয়ায় ৩ জন, বাঁশখালী ৫ জন, আনোয়ারা ৮ জন, চন্দনাইশ ২ জন, পটিয়া ১৯ জন, বোয়ালখালী ৪ জন, রাঙ্গুনিয়া ২ জন, রাউজান ৪ জন, ফটিকছড়ি ৩৭ জন, হাটহাজারী ১৮ জন, সীতাকুণ্ড ২১ জন, মিরসরাই ৯ জন এবং সন্দ্বীপে ১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটি (সিভাসু) ল্যাব, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয় নি

আরও খবর