চট্টগ্রামে করোনায় শনাক্তের সংখ্যা এ যাবতকালের সর্বনিম্ন পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে। রোববার ১ হাজার ৭১৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে মাত্র ১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। শতকরা হারে যার সংখ্যা মাত্র শূণ্য দশমিক ৬৯ শতাংশ। আরেকটি সূখবর হচ্ছে এদিন কোনও মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেনি। তাছাড়া ১৪ উপজেলার মধ্যে ২টি ছাড়া বাকি ১২টি উপজেলা রোগী শূন্য ছিল এদিন।

সোমবার (১১ অক্টোবর) এ তথ্য জানায় চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।

তথ্য মতে, রোববার চট্টগ্রামের ১০টি ল্যাবে সর্বমোট ১ হাজার ৭১৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাতে ১১ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। নতুন আক্রান্তের মধ্যে ৮ জন নগরের আর ৩ জন উপজেলার বাসিন্দা।

এ নিয়ে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ২ হাজার ২৫ জনে এসে দাঁড়িয়েছে। আর মৃত্যুর সংখ্যা আগের দিনের মত ১ হাজার ৩১১ জনই।

ল্যাবগুলোর মধ্যে চমেক ল্যাবে ৬৬টি নমুনার মধ্যে ১ জন, শেভরনে ৪৬২টি নমুনার মধ্যে ২ জন, মেডিক্যাল সেন্টার হাসপাতালে ৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ জন, চবিতে ২৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২ জন, ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৪১৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩ জন, মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ২৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এছাড়া বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৪১৬টি, ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ২১টি, আরটিআরএল ল্যাবে ২টি ও ল্যাব এইডে একজনের নমুনা পরীক্ষায় কারোই করোনা শনাক্ত হয়নি।

এদিকে সিভাসু, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, এন্টিজেন টেস্ট করা হয়নি রোববার।

উপজেলাগুলোর মধ্যে সাতকানিয়ায় ২ জন ও হাটহাজারীতে ১ জন আক্রান্ত হয়েছে। এ দিন লোহাগড়া, বোয়ালখালী, ফটিকছড়ি, বাঁশখালী, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, পটিয়া, রাঙ্গুনিয়া, রাউজান, সীতাকুণ্ড, মিরসরাই ও সন্দ্বীপে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি।

আরও খবর