মহামারী করোনাভাইরাসে শনাক্তের সংখ্যা চট্টগ্রামে আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমলেও মৃত্যুর সংখ্যা আবার বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩০১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। তবে এদিন মৃত্যু আবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ জনে। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার প্রকাশিত তথ্যে চট্টগ্রামে শনাক্ত ছিল ৩৪৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছিল ৬ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মারা যাওয়া ১০ জনের মধ্যে নগরীতে ২ জন এবং উপজেলা পর্যায়ের ৮ জন। অন্যদিকে শনাক্তদের মধ্যে নগরের ১৬১ জন এবং বিভিন্ন উপজেলার ১৪০ জন রয়েছেন।

শুক্রবার (২০ আগস্ট) চট্টগ্রামের করোনার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি। তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় কক্সবাজার হাসপাতাল ল্যাব ও চট্টগ্রামের ৯টি ল্যাবে মোট ১ হাজার ৯১৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর আগের দিন এ সংখ্যা ছিলো ২ হাজার ৫৯২ জন।

চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৬ হাজার ৫০৩ জন। মোট শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীর ৭০ হাজার ৬৪৩ জন। আর জেলার বিভিন্ন উপজেলার ২৫ হাজার ৮৬০ জন রয়েছেন।

গত ২৪ ঘন্টায় উপজেলা পর্যায়ে যারা আক্রান্ত হয়েছেন এর মধ্যে রাউজানে ৩৬ জন, হাটহাজারীর ২৪ জন, সাতকানিয়ায় ২০ জন, ফটিকছড়িতে ১৫ জন, আনোয়ারায় ১০ জন, লোহাগাড়া, চন্দনাইশ ও বোয়ালখালীতে ৮ জন করে, সীতাকুণ্ডে ৫ জন, পটিয়ায় ৩ জন, রাঙ্গুনিয়া, মিরসরাই ও বাঁশখালীতে ১ জন করে করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়। তবে এদিন সন্দ্বীপে কোন করোনা রোগী পাওয়া যায়নি।

গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ১০৬ জন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩৯ জনের শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া গেছে।

এদিন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের ৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে কারো শরীরে পজেটিভ আসেনি। একই সময়ে চট্টগ্রাম ভেটেনারি ও এনিম্যাল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবেও ৪২ জনের শরীরে করোনার অস্তিত্ব মিলেছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবেও নতুন করে ৬৫ জনের পজেটিভ আসে। এদিন ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১২ জনের পজেটিভ আসে।

গত ২৪ ঘন্টায় জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ল্যাবে ৬ জনের পজেটিভ আসে। এদিন এন্টিজেন টেস্ট পরীক্ষা হয়নি। মেডিকেল সেন্টার হাসপাতাল ল্যাবে ৭ জনের করোনা পজেটিভ আসে।

এদিন শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা হয়নি। চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ০৫ জন এবং ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ১৯ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

আরও খবর