২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) দুই ছাত্রীকে হেনস্তা করেন ৪ জন। এই ঘটনায় ১ বছরের জন্য বহিষ্কার হন তারা। তাদের মধ্যে রাকিব হাসান (আর এইচ রাজু) ও ইমন আহমেদ পরীক্ষায় বসেছেন। দুজনই দর্শন বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

বুধবার (৩ আগস্ট) থেকে শুরু হওয়া দর্শন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন তারা।

বহিষ্কার হয়েও পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বিষয়ে দর্শন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবদুল মান্নান বলেন, আমরা রেজিস্ট্রার কার্যালয় থেকে বহিষ্কারের কোনো চিঠি পাইনি। বহিষ্কারাদেশ পেলে তারা পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান বলেন, বহিষ্কৃতরা পরীক্ষা দিলেও তা আপনা-আপনি বাতিল হবে। সিদ্ধান্ত গ্রহণের পরদিন থেকেই তাদের বহিষ্কার আদেশ কার্যকর হবে।

এখন পর্যন্ত বিভাগে চিঠি না পাঠানোর বিষয়ে তিনি বলেন, বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত সভায় হয়েছিল। এ সভার লিখিত কোনো আদেশ এখনো তৈরি হয়নি। মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। দ্রুতই চিঠি পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে সাংবাদিকতা বিভাগের দুই ছাত্রীকে হেনস্তার অভিযোগ ওঠে চার শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। ঘটনার ১০ মাস পর গত ২৫ জুলাই উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান জড়িত ৪ জনকে বহিষ্কারে তথ্য জানান।

তারা হলেন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রুবেল হাসান, আরবি বিভাগের শিক্ষার্থী মো. জুনায়েদ, দর্শন বিভাগের একই বর্ষের ইমন আহাম্মেদ এবং রাকিব হাসান (আর এইচ রাজু)। তারা সবাই ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হন। ৪ জনই শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

আরও খবর