জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে একটি প্রকাশনার প্রবন্ধে আপত্তিকর কটূক্তির অভিযোগ এনে তিনজনের বিরুদ্ধে নালিশি মামলা করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলা অ্যাকাডেমির পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক ও দৈনিক আজাদীর সহযোগী সম্পাদক রাশেদ রউফ ও লেখক ও প্রাবন্ধিক নেছার আহমেদকে মামলায় অভিযুক্ত করা হয়।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হোসেন মোহাম্মদ রেজার আদালতে নালিশি মামলাটি করেন নাজিম উদ্দীন সুজন (৫০) নামে এক ব্যক্তি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম অ্যাকাডেমি থেকে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে ‘জাতির পিতা’ নামে একটি পুস্তক প্রকাশিত হয়। ওই পুস্তকে ‘শেখ মুজিবের গোপন শত্রু’ নামের প্রবন্ধে অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম লিখেন, ‘একাত্তরের আগের শেখ মুজিব আর পরের শেখ মুজিব এক নন, বড়ই সত্য কথা। ’ একই প্রবন্ধের আরও লিখেন, ‘নৈতিক পতনই তার দৈহিক পতন ডেকে আনে’।

এই দুটি লাইনের উল্লেখ করে মামলার বাদি নাজিম উদ্দনী সুজন বলেন, চট্টগ্রাম শহরে এমন আরও অনেকে আছে, যারা লেখনির মাধ্যমে প্রতিনিয়ত অত্যন্ত সুক্ষ্মভাবে বঙ্গবন্ধু তথা স্বাধীনতার বিরুদ্ধে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। একজন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের বিশ্বাসী হিসেবে আদালতের আশ্রয় নিয়েছি। আদালত আগামী রোববার (২৪ অক্টোবর) মামলাটি শুনানির জন্য রেখেছেন।

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী দেশের একজন খাতিমান লেখক, প্রাবন্ধিক ও শিক্ষক। দীর্ঘকাল তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে অধ্যাপনা করেছেন। ‌শিক্ষায় অবদানের জন্য তিনি ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হন। ১৯৭৬ সালে তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়াও তিনি দুই বার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্যের দায়িত্বের জন্য মনোনীত হয়ে তা প্রত্যাখ্যান করেন।

আরও খবর