প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেছেন, বাংলাদেশ এখন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। হিন্দু, বৌদ্ধ, মুসলিম, খ্রিস্টান সবাই মিলেমিশে এই দেশকে এগিয়ে নিতে কাজ করছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সম্প্রীতির মনোভাব আমাদের মাঝ থেকে ধর্মীয় ভেদাভেদ ভুলিয়ে দিয়েছে। রাষ্ট্রীয় সকল দায়িত্বে সব ধর্মের অনুসারীরা সমান সুযোগ পাচ্ছেন। আগে যা ভাবাও যেত না।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সীতাকুণ্ড পান্থশালা ধর্মাঙ্কুর বৌদ্ধ বিহারে বুদ্ধ প্রতিবিম্ব স্থাপন, মহাসংঘদান ও বৌদ্ধ মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, একসময় মৌলবাদী গোষ্ঠী দেশকে অস্থিতিশীলতার দিকে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল। বাংলাদেশ মৌলবাদী রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু তারা ব্যর্থ। জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নেওয়ার যে যুদ্ধে নেমেছেন, তাতে যেন তিনি সফল হন। আর তার হাতকে শক্তিশালী করতে হলে আমাদেরও ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার সহসভাপতি প্রিয়ানন্দ মহাথেরোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান জ্ঞাতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংঘরাজ ভিক্ষু মহামণ্ডলের সভাপতি জীনালঙ্কার মহাথেরো।

সমুদ্র বড়ুয়ার সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম আল মামুন, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রাহুল বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা রিকসন বড়ুয়া, সীতাকুণ্ড পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ।

আরও খবর