সারা বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের উদ্যোগে রয়েল ড্যানিশ এ্যাম্বাসির আর্থিক সহযোগিতায় চট্টগ্রামেও উদযাপিত হল বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস-২০২১।
রোববার (১০ অক্টোবর) সকাল ১০ টায় ডিআরএসসি সেন্টারে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে দিবসটি পালন করা হয়। এ বছর মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘মেন্টাল হেলথ কেয়ার ফর অল “লেটস মেক ইট অ্যা রিয়েলিটি’।

মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার। আলোচনা রাখেন ব্র্যাকের এরিয়া ম্যনেজার (দাবি) মো. আল মামুন এবং মাইগ্রেশন অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত সাংবাদিক ফারুক মুনিরসহ ব্র্যাকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার বলেন, কোভিডকালীন সময়ে প্রবাসীরা যেভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, তা কেবল মাত্র প্রবাসিরা বুঝতে পারেন। প্রবাসিদের জন্য প্রবাসী পরিবারের সদস্যগণ ও মানসিক অশান্তিতে ভুগেছেন। খুব কম সংখ্যাক প্রতিষ্ঠানই মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করছেন। ব্র্যাকের মত প্রতিষ্ঠানকে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করতে দেখে আমার অনেক ভালো লাগছে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, অনুভূতি, মনোজগত ও সামাজিক সুস্থতার সাথে সম্পর্কিত মানসিক স্বাস্থ্য। মানসিক সুস্থতা ব্যক্তিজীবনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। সাধারণত, স্বাস্থ্য ও সুস্থতার কথা চিন্তা করলেই আমাদের মনে প্রথমেই আসে শারীরিক সুস্থতার বিষয়টি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, প্রতি ৪০ সেকেন্ডের মধ্যে কেউ না কেউ আত্মহত্যার মাধ্যমে প্রাণ হারান। আত্মহত্যাজনিত মৃত্যুর অধিকাংশই প্রতিরোধযোগ্য। অধিকাংশ ব্যক্তিই আত্ম হত্যার সময় কোনো না কোনো মানসিক রোগে আক্রান্ত থাকেন।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং সঞ্চালনায় ছিলেন ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের ডিসট্রিক্ট কো-অর্ডিনেটর আবু বক্কার লিটন। ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের সেক্টর স্পেশালিস্টক ইকোনমিক রিইন্ট্রিগ্রেশন অফিসার এস এম যোবায়ের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে আলোকপাত করেন।

ব্র্যাকের কাউন্সিল সেবাপ্রাপ্ত অভিবাসিদের মধ্যে হাটহাজারীর আলি আকবর, পটিয়ার নাছির উদ্দীন, আনোয়ারার সজল দেবসহ আরো বিদেশ ফেরত ব্যক্তিরা বক্তব্য রাখেন।

আরও খবর