কক্সবাজারের খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের মনুপাড়া এলাকায় বোনের ইজ্জত রক্ষা করতে গিয়ে ভাই আব্দুল মোনাফকে মারধরের ঘটনায় দুই বখাটেকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হলো- আরমান ও রায়হান।

রবিবার (১২ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেলিম উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি অবগত হওয়ার পর শনিবার রাতেই পুলিশের ২টি টিম ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। তারা সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে দুজনকে আটক করে। অভিযুক্ত আরেকজনের নাম মোহাম্মদ জামাল। তাকে ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে বোনের ইজ্জত রক্ষা করতে গিয়ে ভাইকে বেদম মারধরের ঘটনাটি কয়েকদিন আগে ঘটলেও শনিবার (১১ জুন) দুপুরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ঘটনার বিস্তারিত জানা না গেলেও একটি ভিডিও ফুটেজ প্রতিবেদকের হাতে এসেছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, দুইজন যুবক হাতে লাঠিসোঁটা নিয়ে বেপরোয়া মারধর করছে। বোনের ইজ্জত রক্ষা করতে গিয়ে সব আঘাতগুলো পড়ছে ভাইয়ের উপরে। দুর্বৃত্তদের এলোপাতাড়ি মারধরে আব্দুল মোনাফের সারা শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়ে গিয়েছে। ঘটনাস্থলে যে কয়জন মানুষ দেখা যাচ্ছে তারাও উদ্ধারে এগিয়ে যায়নি। মনুপাড়ার মোহাম্মদ জামাল, মো. রায়হান ও কুলিয়া পাড়ার আরমান ঘটনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, রিমাকে প্রতিদিন স্থানীয় কিছু বখাটে উত্ত্যক্ত করতো। বারবার একই ঘটনা হতে দেখে এগিয়ে যায় ভাই আব্দুল মুনাফ। কিন্তু অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে মারধরের শিকার হলো ভাই আব্দুল মোনাফ।

ঘটনার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান সিদ্দিকী বলেন, বোনকে রক্ষা করতে গিয়ে এভাবে মারধরের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। যারা ন্যক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার চেষ্টা চলছে। সেইসঙ্গে এই ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও খবর