পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে এসেছিল অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ক্রিকেট দল। ১০ দিনের সংক্ষিপ্ত সফরে গত ২৯ জুলাই ঢাকায় পা রাখে অজিরা। ব্যস্ত সূচিতে ৩ দিনের কোয়ারেন্টাইন পর্ব শেষ করে গত ৬ দিনে ৪টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে দুই দল। সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচে আজ সোমবার মাঠে নামছে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া।

৯ আগস্ট মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা ৬টায়। করোনাভাইরাসের কারণে স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে বসে খেলা দেখার সুযোগ নেই স্বাগতিক সমর্থকদের। ম্যাচটি সরাসরি উপভোগ করা যাবে গাজী টেলিভিশন ও টি-স্পোর্টসের পর্দায়।

এই সিরিজের আগে অজিদের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টির পরিসংখ্যান খুব বেশি সুখকর ছিল না টাইগারদের। চার ম্যাচের চারটিতেই হার লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। তবে প্রায় ৪ বছর পর এ দেশে সফর করতে এসে ভিন্ন এক বাংলাদেশ দলের দেখা পেল অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েডের দল। বাইশ গজের লড়াইয়ে সফরকারীদের কোণঠাসা করে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম তিনটি জিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে রেখেছে স্বাগতিকরা।

যদিও চতুর্থ ম্যাচে লড়াই করেও ৩ উইকেটে হেরে গেছে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা। আগের চার ম্যাচে একই একাদশ নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ। সিরিজ জিতলেও ১৭ সদস্যের স্কোয়াডে বাকিদের সুযোগ মেলেনি।

ওপেনিং জুটিতে টানা ব্যর্থতার পরেও সৌম্য সরকার আর নাঈম শেখে আস্থা রেখেছে টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে এ ম্যাচে পরিবর্তন আসতে পারে দুটি। সৌম্য বা নাঈমের মধ্যে একজন জায়গা হারাতে পারেন, সেক্ষেত্রে একাদশে দেখা যেতে পারে মোহাম্মদ মিঠুনকে। মন্থর উইকেটে ২ পেসার খেলানো বাংলাদেশ দল শেষ ম্যাচে বিশ্রাম দিতে পারে পেসার শরিফুল ইসলামকে। এতে ভাগ্য সুপ্রসন্ন হতে পারে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের।

আরও খবর