বড়দের মারামারিতে আহত হয়ে সংকটাপন্ন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের নিউরো সার্জারি বিভাগের চিকিৎসা নিচ্ছে দুই মাস বয়সের শিশু উম্মে হাবিবা। কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের পুরিত্যাখালী এলাকায় বড়দের মারামারিতে ইটের আঘাতে শিশুটিও আহত হয়েছে। তার মাথা ফেটে গেছে।

বুধবার (৩ মার্চ) রাত ১১টা মাথায় আঘাত পায় উন্মে হাবিবা। সে থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তার জ্ঞান ফিরেনি। চিকিৎসকরা ২৪ ঘন্টার পর্যবেক্ষণে রেখেছেন।

শিশুটির মা লালু ঝর্ণা জানান, পুরিত্যাখালী এলাকায় শাহনা বেগম নামের এক নারী বসতঘর নির্মাণ করতে গেলে কোনাখালী এলাকার একদল সন্ত্রাসী চাঁদা দাবি করে। এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় এলাকার লোকজন চাঁদাবাজদের প্রতিহত করে। রাত ১১টার দিকে ওই সন্ত্রাসীরা ওই এলাকার বেশকিছু বাড়ি-ঘরে হামলা করে। এসময় তাঁর দুই মাস বয়সের শিশু উম্মে হাবিবার মাথায় পাথরের আঘাত লাগে। সাথে সাথে শিশুটি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে শিশুটিকে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা চমেক হাসপাতালে রেফার করে।

এ ঘটনায় আহত শিশুটির পিতা মোহাম্মদ রুবেল জানান, তারা ঘরে ঘুমাচ্ছিল। হঠাৎ করে বৃষ্টির মতো ইট-পাটকেল আসতে থাকে তার ঘরের দিকে। এসে রুবেল ও তার শিশুটি মারাত্মকভাবে আহত হয়। এরপর থেকেই সে চোখ খুলছে না। সাড়া শব্দ নেই।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ হামিদ হাসান জানান, শিশুটির মাথায় আঘাত লেগেছে। তার অবস্থা সংকটাপন্ন। ২৪ ঘন্টা না গেলে কিছুই বলা যাচ্ছে না।

আহত শিশু উম্মে হাবিবার পিতা রুবেল জানান, চকরিয়া থানায় এ বিষয়ে একটি মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

আরও খবর