করোনাভাইরাসের কারণে যে কয়টি সিরিজ বাতিল হয়েছে বাংলাদেশ দলের, তার মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত ছিল শ্রীলঙ্কা সফর। গত জুলাই মাসে শ্রীলঙ্কা যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের। সেটি স্থগিত করে নিয়ে যাওয়া হয় অক্টোবরে। কিন্তু তখন আবার বাংলাদেশের দলের কঠোর কোয়ারেন্টাইন বিধি আরোপ করে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। যা মেনে সফর করা সম্ভব ছিল না বাংলাদেশের পক্ষে।

 

ফলে তখন বাতিল হয়ে যায় সেই সফর। দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ভবিষ্যতে সুবিধাজনক সময়ে হবে এ সিরিজটি। এখনও নিশ্চিত হয়নি দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে কবে শ্রীলঙ্কা যাবে বাংলাদেশ। তবে আগামী মে মাসে ওয়ানডে সিরিজের জন্য বাংলাদেশ সফরে আসবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল।

বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান। এছাড়া খুব শিগগিরই লঙ্কা সফরের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হবে বলে জানান আকরাম। তিনি বলেন, ‘শ্রীলঙ্কা দল মে মাসে বাংলাদেশে আসবে। (মে মাসে) আমরা সেখানে যাচ্ছি না। তবে এর আগেও আমরা সেখানে যেতে পারি, পরেও যেতে পারি।’

 

শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে নিশ্চিত তথ্য জানালেও, জিম্বাবুয়ে সফরের বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু জানাতে পারেননি আকরাম। এ সফরের আলোচনা এখনও চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘(শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে) দুইটা সিরিজই কনফার্ম আছে। জিম্বাবুয়েরটা এখনও নিশ্চিত না, আমরা কিছুদিনের মধ্যেই নিশ্চিত হবো। যেহেতু এটা (শ্রীলঙ্কা সফর)) বাতিল হয়ে গিয়েছিল আর আমাদের দুইটা বোর্ডেরই সময়ের একটা ব্যাপার আছে। তাই আমরা চিন্তাভাবনা করছি (কীভাবে করা যায়)।’

 

খেলোয়াড়দের টানা বায়ো বাবলের থাকার চাপের কথা উল্লেখ করে আকরাম আরও বলেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়দের বিশ্রামেরও একটা ব্যাপার আছে। এটা আসলে খেলোয়াড়দের জন্য বেশ কষ্টসাধ্য। এই যে বায়ো বাবলটা খেলোয়াড়দের জন্য অনেক বড় একটা চাপ, এটাও আমরা মাথায় রেখেছি। অতিরিক্ত খেলা, খেলোয়াড়দের বিশ্রামও গুরুত্বপূর্ণ, সবকিছু বিবেচনা করেই আমরা ট্যুরটা করছি।’

আরও খবর