দুর্দান্ত বোলিংয়ে আলো ছড়ালেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি এই স্পিনারের ছোবলে একটা সময় জমে গিয়েছিল ম্যাচ। সম্ভাবনা জেগেছিল ফল বেরুনোর। কিন্তু নিরোশান ডিকভেলা ও দিনেশ চান্দিমালের চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞার ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত ড্র হলো বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার চট্টগ্রাম টেস্ট।

চতুর্থ দিনে দুই দলের কেবল প্রথম ইনিংস শেষ হওয়ায় ড্র-ই ছিল সবচেয়ে সম্ভাব্য ফল। যদিও তাইজুলের বল হাতে লড়াই কিছু আশা জাগায় বাংলাদেশের মনে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই আশার বাতি নিভিয়ে দেন ডিকভেলা ও চান্দিমাল।

পঞ্চম দিন বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করা শ্রীলঙ্কার রান যখন ৬ উইকেটে ২৬০, ড্র মেনে নেন দুই দলের সদস্যরা। তখনও দিনের খেলা বাকি ছিল ১৫ ওভার।

দুই টেস্টের সিরিজটি এখনও সমতায়। আগামী সোমবার মিরপুরে শুরু হবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।

চতুর্থ দিন দুই উইকেট হারানো শ্রীলঙ্কা পঞ্চম দিনের প্রথম সেশনে হারায় আরও দুটি। পরে দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে দিমুথ করুনারত্নে ও ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ফিরলে আশা জাগে বাংলাদেশের মনে।

কিন্তু দুর্দান্ত ব্যাটিং উপহার দিয়ে দলকে পথ দেখান ডিকভেলা ও চান্দিমাল। এক প্রান্ত আগলে রেখে সতর্ক ব্যাটিং উপহার দেওয়া চান্দিমাল শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন এক ছক্কা ও ৪ চারে ১৩৪ বলে ৩৯ রান নিয়ে।

কিছুটা দ্রুত রান তোলা ডিকভেলা করেন ক্যারিয়ারের ২০তম ফিফটি। ৬ চারে ৯৫ বলে ৬১ রানে খেলছিলেন তিনি।

প্রথম ইনিংসে এক উইকেট নেওয়া তাইজুল জ্বলে ওঠেন দ্বিতীয়ভাগে। ৮২ রান দিয়ে ৪ উইকেট তুলে নেন তিনি। সাকিবের শিকার একটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৩৯৭

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৬৫

শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস: ৯০.১ ওভারে ২৬০/৬ (আগের দিন ৩৯/২) (করুনারত্নে ৫২, মেন্ডিস ৪৮, ম্যাথিউস ০, ধনাঞ্জয়া ৩৩, চান্দিমাল ৩৯*, ডিকভেলা ৬১*; নাঈম ২৩-৫-৭৯-০, খালেদ ৭-২-৩৭-০, সাকিব ২৫-৫-৫৮-১, তাইজুল ৩৪-৯-৮২-৪, শান্ত ১-০-২-০)

ফল: ম্যাচ ড্র

আরও খবর