আইপি টিভি জয়যাত্রা টেলিভিশনকে পুঁজি করে ব্যাপাকহারে চাঁদাবাজি করতে র‌্যাবের হাতে আটক হওয়া ওই টিভির চেয়ারম্যান হেলেনা জাহাঙ্গীর। সাংবাদিক নিয়োগ দেওয়ার নামে ২০ হাজার থেকে শুরু করে কারও কারও কাছ থেকে লাখ টাকা চাঁদা আদায় করেছেন তিনি। সেই হেলেনার সাথে আরেক কুরুচির মানুষ সেফুদার ছিল ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ। সেফুদা তাকে নাতনী বলে সম্বোধন করে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) উত্তরা র‌্যাব সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান।

খন্দকার আল মঈন বলেন, জয়যাত্রা টেলিভিশনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসছিলেনর। এই অপতৎপরতার সঙ্গে কারও সংশ্লিষ্টতা পেলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। বিতর্কিত ও প্রতারক হেলেনা জাহাঙ্গীরের জয়যাত্রা টেলিভিশন ও জয়যাত্রা ফাউন্ডেশন দ্বারা যারা প্রতারণার শিকার হয়েছেন তারা আইনী সহায়তা নিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আসার পরামর্শ দেন কমান্ডার আল মঈন।

র‌্যাব আরও জানায়, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে খ্যাতি লাভের আশায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে সম্মানিত ব্যক্তিদের বিব্রত করতেন হেলেনা। অপকৌশল হিসেবে কখনও মাদার তেরেসা, পল্লী মাতা-প্রবাসী মাতা হিসেবে পরিচিতি পেতে জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলেন।

আল মঈন আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে সমালোচিত সেফুদার সঙ্গে ছিল হেলেনা জাহাঙ্গীরের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। তার সঙ্গে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নিয়মিত যোগাযোগ এবং আর্থিক লেনদেন ছিল বলেও প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে র‌্যাব। সেফুদা হেলেনা জাহাঙ্গীরকে নাতনী বলেও সম্বোধন করতো।

হেলেনা জাহাঙ্গীর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে ফেসবুক লাইভে এসে অযাচিত কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করতেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে বিভিন্ন সম্মানিত ব্যক্তিদের কটাক্ষ, উত্যক্ত কারী হেলেনা জাহাঙ্গীর বিভিন্ন জনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে তার অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতেন।

এদিকে হেলেনা জাহাঙ্গীরের আটকের খবর পেয়ে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভে এসে তার স্বভাবসূলভ গালমন্দ শেষে নাতনীর মুক্তিও চেয়েছেন মানসিক বিকারগ্রস্থ সেফুদা।

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের উপ-কমিটি থেকে অব্যাহতি পাওয়া মহিলা-বিষয়ক সম্পাদক হেলেনা জাহাঙ্গীরকে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টা আটক করে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে গুলশান থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার (৩০ জুলাই) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালতেপাঁচ দিনের বিমান্ড আবেদন করলে আদালত শুনানি শেষে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

চট্টগ্রাম বার্তা/পিএ

আরও খবর