পূর্বের ঘটনার জের ধরে ফের সংঘর্ষে জড়িয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষের নেতা-কর্মীরা। এতে ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আল আমিন রিমনকে কুপিয়ে আহত করার পর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) নিয়ে যাওয়া হয়েছে। হল খোলার আগের দিনই মারামারি হলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলছে কর্তৃপক্ষ।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) বিকেল চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহাজালাল হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। সিএফসি ও সিক্সটি নাইন গ্রুপের মারামারিতে রিমন আহত হন।

সিএফসি হলো শিক্ষা উপ-মন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী ও সিক্সটি নাইন গ্রুপ হলো নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছিরের অনুসারী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল প্রায় চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহাজালাল হল ও শাহ আমানত হলের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে দুই পক্ষ ইট নিক্ষেপ করে।

চবি প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, সংঘর্ষের বিষয়টি জেনে আমরা তাৎক্ষণিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেছি। বিশ্বিবদ্যালয়ে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় বিশ্বিবদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিহাব আরমান মানিক নামে সিক্সটি নাইন গ্রুপের এক কর্মীকে মারধর করে সিএফসি গ্রুপের কর্মীরা। এর জের ধরে পরেরদিন শুক্রবার জুম্মার পর সিক্সটি নাইনের আরও দুই কর্মীকে কুপিয়ে আহত করে সিএফসি। ওই ঘটনার জেরে আজও সংঘর্ষে জড়ালো বিবদমান দুটি গ্রুপ।

৫৭৯ দিন পর সোমবার (১৮ অক্টোবর) চবির আবাসিক হলগুলো খুলছে। শিক্ষার্থীদের নানা আয়োজনে বরণ করতে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে হল প্রশাসন। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় সংস্কার করা হয়েছে নষ্ট হয়ে যাওয়া বিভিন্ন জিনিসপত্র। হলজুড়ে চালানো হয়েছে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযানও।

আরও খবর