লাখ লাখ মানুষের ঢল, হাতে কলেমা খোচিত পতাকা কারো হাতে লাল সবুজ জাতীয় পতাকা। সবার মুখে হামদে বারী তা’লা ও নাতে রাসূল (সা.)। করোনার কারণে ছোট পরিসরে উৎসব মুখর পরিবেশে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হলো ঐতিহ্যবাহী জশনে জুলুস।

পূর্বের ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার (২০ অক্টোবর) সকাল পৌনে ৯টায় নগরীর আলমগীর খানকাহ্-এ-কাদেরিয়া সৈয়্যদিয়া তৈয়্যবিয়া থেকে বের হয় পবিত্র ঈদ-এ-মিলাদুন্নবীর (স.) জশনে জুলুস। এবার প্রথমবারের মতো জুলুসে নেতৃত্ব দিয়েছেন পাকিস্তানের পীর আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ।

জুলুস জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদ্রাসা সংলগ্ন সড়ক হয়ে বিবিরহাট, মুরাদপুর, ২ নম্বর গেট ঘুরে পুনরায় মুরাদপুর বিবিরহাট প্রদক্ষিণ করে মাদরাসা সংলগ্ন জুলুস ময়দানে ফিরে আসে। মাদরাসা মাঠে ফিরে শুরু হয় মাহফিল। মাহফিল শেষে করোনামুক্তি ও বিশ্বশান্তির জন্য দোয়া ও মোনাজাত করা হবে।

জুলুস শুরুর আগে আনজুমান ট্রাস্টের সেক্রেটারি মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, আল্লামা তৈয়ব শাহ (র.) ১৯৭৪ সালে এ জুলুসের প্রবর্তন করেন। আমরা এ জুলুস সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে চাই। তিনি করোনাকালে গাউসিয়া কমিটির কার্যক্রমের কলা উল্লেখ করে বলেন আমরা মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছি। সামনের দিনেও মানুষের পাশে থাকেবো।

আরও খবর