লোহাগাড়ায় মিনু আরা বেগম ( ২৫) নামে এক গৃহবধূর লাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়েছে স্বামী ও শুশুর বাড়ির লোকজন। নিহত গৃহবধূ কলাউজান ইউনিয়নের বাংলাবাজার মিয়াজি পাড়ার আবদুল জাব্বারের স্ত্রী ও এক সন্তানের জননী। তবে হত্যা নাকি আত্মহত্যা সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বৃহস্পতিবার ( ১২ আগস্ট ) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে নিহত মিনুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

নিহত গৃহবধুর বাপের বাড়ির লোকরা জানান, বিকাল ৫ টার দিকে মিনু আরা বেগমের স্বামী তাদেরকে ফোন করে জানান, মিনু আরা বেগম গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে৷ লাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছে। খবর পেয়ে তারা হাসপাতালে গিয়ে মিনু আরা বেগমের লাশ পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয়।

তাদের দাবি, পারিবারিক কলহের জের ধরে মিনু আরা বেগমকে নিয়মিত মারধর করত স্বামী জব্বার।

দীর্ঘদিন স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল এবং এ নিয়ে সামজিকভাবে সালিশও হয়েছিল বলে জানান স্থানীয় ইউপি সদস্য মমতাজ উদ্দিন।

লোহাগাড়া থানার সূত্রে জানা গেছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও মিনুর স্বজনদের ফোন পেয়ে তারা হাসপাতালে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। মিনুর মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয়ে তারা কাজ করছেন বলেও জানান।

গত ১৮ জুলাই চরম্বা ইউনিয়নের মাইজবিলা এলাকার ফারজানা ইয়াসমিন কলি (২১) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। কলির মৃত্যুর পর থেকে স্বামী জিয়াউর রহমান পলাতক রয়েছেন।

চট্টগ্রাম বার্তা/পিএ

আরও খবর