পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে ঢাকায় এসে পৌঁছে গেলেন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সে করে আজ দুপুর সোয়া ১২টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এসে নামেন কিউইরা।

বিমানবন্দরে ইমিগ্রিশনের প্রক্রিয়া সেরে সফরকারী ক্রিকেটাররা চলে যান সোজা টিম হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে। যেখানে আগে থেকেই রয়েছেন আরও দুই কিউই ক্রিকেটার অ্যালেন ফিন ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। ইংল্যান্ডের দ্য হান্ড্রেড ক্রিকেট খেলে তারা গত শুক্রবার ঢাকায় এসে পৌঁছে যান।

আগেই জানা অধিনায়ক উইলিয়ামসন, বিশ্বমানের দুই ফাস্ট বোলার টিম সাউদি, ট্রেন্ট বোল্টসহ বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডের কেউ নেই বাংলাদেশ সফরে নিউজিল্যান্ড দলে। এর বাইরে, টম ল্যাথামের নেতৃত্বে স্বল্প পরিচিত ও তূলনামুলক অনভিজ্ঞ ক্রিকেটারে গড়া বহর নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে নিউজিল্যান্ড।

সেই কিউই বহর এখন রাজধানীতে। মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২ টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরন করেছে ব্ল্যাক ক্যাপ্সরা। ১৩ জন ক্রিকেটার ও ৭ কর্মকর্তা এসেছেন এই বহরে। বিসিবির অভ্যর্থনা কমিটির সদস্য ওয়াসিম খান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ওয়াসিম খান জানান, ‘১৩ জন ক্রিকেটার ও ৭ কর্মকর্তা এসেছে মঙ্গলবার দুপুরের ফ্লাইটে।’

ল্যাথামের দলও বিমানবন্দর থেকে সরাসরি টিম হোটেল ঢাকা ইন্টারকন্টিন্টোলে চলে যান। সেখানে তারা তিনদিনের রুম কোয়ারেন্টাইনে থাকবে এবং সেই একই হোটেলে টিম বাংলাদেশও অবস্থান করবে।

বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম জানিয়েছেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরে যে করোনা প্রটোকল ছিল, একই প্রটোকল থাকবে কিউইদের বাংলাদেশ সফরেও। এবারও দুই দলের হোটেল ইন্টারকন্টিন্টোলে থাকাকালীন সময়ে আর কারো অবস্থান নিষেধ। মানে আজ থেকে সিরিজ শেষ না হওয়ার পর নিউজিল্যান্ড দলের ঢাকা ত্যাগের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত আর কোন বোর্ডার হোটেলে থাকা নিষেধ।

এদিকে তিনদিন হোটেলে জৈব সুরক্ষা বলয়ে থেকে আগামী ২৭ আগস্ট নিউজিল্যান্ড দল শেরে বাংলায় প্রথম অনুশীলন করবে। আর ১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে ৫ ম্যাচ সিরিজ।

আরও খবর